Bike vlogging করলেই এবার ধরবে পুলিশ, কিন্তু কেনো?

Moto Vloggers

রিপোর্টের মাধ্যমে জানা যায় এবার থেকে বাইক চালানোর সময় হেলমেটে ক্যামেরা থাকলে পুলিশ ধরবে। Motor vehicle department of Kerala ( MVD ) নতুন নিয়মের মাধ্যমে পুরোপুরি ভাবে নিষিদ্ধ করে দিয়েছে বাইকের হেলমেটে ক্যামেরা লাগানো। এবং এটিও জানা গেছে যে যদি কোনভাবে চলমান গাড়িতে হেলমেটের সাথে ক্যামেরা লাগানো থাকে তবে কমপক্ষে 1000 টাকা জরিমানা থাকবে ও তিন মাসের জন্য বাইকের লাইসেন্স ক্যানসেল করা হতে পারে। 

এই সিদ্ধান্তটি বর্তমানে নেওয়া হয়েছে কিন্তু এর বিরুদ্ধে কোনরকম ভাবে চ্যালেঞ্জ ও অ্যাকশন নেওয়া সম্ভব নয়। আগামীতে যখন কোন পুলিশ বাইক চালানো সময় হেলমেটের মধ্যে ক্যামেরা লাগানো অবস্থায় দেখা গেলে তখন এই নিয়ম এর বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতে পারে। কিন্তু অনেকেই জানেন না এই নতুন নিয়মের পিছনে প্রধান কারণ কি? 

প্রায় এক বছর আগে এই হেলমেটে ক্যামেরার বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল কারণ গাড়ি চালানোর সময় এই ক্যামেরা গাড়ি চালকদের বিভ্রান্ত করে হলে এক্সিডেন্টের শিকার হতে হয়। কিন্তু বর্তমানে যে নিয়মটি কে গুরুত্বপূর্ণভাবে ধরা হয়েছে এর পিছনে আরও অন্য একটি কারণ রয়েছে। 

চলমান বাইকের হেলমেটের সাথে ক্যামেরা বেআইনি কেন করা হলো? 

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল ও পপুলার হওয়ার জন্য বর্তমান যুগের ছেলেমেয়েরা অনেকে অনেক ধরনের কাজ করে যাচ্ছে। গাড়ি চালানো অবস্থায় যেটিকে বলা হচ্ছে Moto Vlogging, রাস্তার মধ্যে ক্যামেরা নিয়ে গাড়ি চালক বিভিন্ন ধরনের স্ট্যান্ড দেখাচ্ছে। তার ফলে নিজে আহত হচ্ছে এবং অপরকে আহত করছে। সেইসব ভিডিও ইনস্টাগ্রাম ইউটিউব ফেসবুক ইত্যাদি জাগায় প্রতিনিয়ত পোস্ট হচ্ছে। ফলে আরো অনেক মানুষ রয়েছে যারা প্রভাবিত হচ্ছে। অন্যরা দেখে তারাও কোনরকম প্রশিক্ষণ ছাড়া নিজেও চেষ্টা করছে এই ধরনের ভিডিও বানানোর। 

আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ রয়েছে। যেসব হেলমেট গুলির সাথে ক্যামেরা অ্যাটাচ রয়েছে সেই সব হেলমেটে দুর্ঘটনার সময় ভালোভাবে নিরাপত্তা দিতে পারে না। 

এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে কিছু সমাধান দেখে নেয়া যাক:

আপনারা জানেন হেলমেটে ক্যামেরা রেকর্ডিং অবস্থায় থাকলে আমাদের সাথে অনেক রকম বেআইনি কাজ থেকে বাঁচা যায় এবং রাস্তায় দুর্ঘটনা হলে তার প্রমাণ নিজের কাছে রাখা যায় যে ভুলটি কার ফলে অনেক ধরনের ঝামেলা থেকে রেহাই পাওয়া যায়। কিন্তু একটি জিনিসের ভালো দিক যেমন রয়েছে ঠিক তার উল্টো খারাপ দিকে রয়েছে আমাদের সেটি মেনে নিতে হবে। 

আইনিভাবে আমরা জানতে পারছি আমাদের গাড়ি চালকের হেলমেটে ক্যামেরা আমরা রাখতে পারব না কিন্তু চার চাকা গাড়ি গুলিতে সামনে ও পিছনে যেমন ক্যামেরা থাকে সেগুলি গাড়িচালক এর যথেষ্ট পরিমাণ সাহায্য করে। এই ধরনের চিন্তাভাবনাকে নিয়ে ভবিষ্যতে বাইকের সাথে ক্যামেরা মাইন্ড করার জায়গার ব্যবস্থা করা যেতে পারে অথবা গাড়ি চালকের রাইডিং জ্যাকেটের মধ্যে ক্যামেরা অ্যাটাচ করা যেতে পারে। 

যত রকম নতুন নিয়ম আসুক না কেন নিজের সাবধানতা নিজের কাছে। সাবধানতা মেনে রাস্তায় গাড়ি চালাবেন যেটুকু আপনার ক্ষমতা সেইটুকু পর্যন্তই হবেন। 

এই ধরনের আরো বিভিন্ন অজানা তথ্য এবং সতর্ক বার্তা সবার আগে পাওয়ার জন্য অবশ্যই আমাদের নিউজওয়াপ সাইটটিকে ফলো করবেন এবং নোটিফিকেশনটি অবশ্যই Allow করে দেবেন।

Leave a Comment