স্বাস্থ্যবিধি

মেডিটেশন কি? মেডিটেশনের উপকারিতা

মেডিটেশন হল একটা কিছুর প্রতি লক্ষ্য স্থির করে মনকে সম্পূর্ণ শান্ত করা। যারা ভগবান বা আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস করে না তারাও এই মেডিটেশন করতে পারে।আবার আধ্যাত্মিক ক্ষেত্রেও মেডিটেশন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। Meditation আধ্যাত্বিক দুনিয়ার সাথে সংযোগ স্থাপন করতে সাহায্য করে।

আমরা অনেকেই আমাদের  Subconscious mind এর ব্যাপারে জানি, Subconscious মাইন্ড এর সাহায্যে আমরা আমাদের স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে পারি,আমরা জানি না কিভাবে এটাকে কাজে লাগাতে হয়,আমাদের মধ্যে কতটা পরিবর্তন হয়েছে, আমরা উপলব্ধি করবএই পৃথিবীর সমস্ত পজিটিভ এনার্জি আমার মধ্যে আছে।

প্রত্যেকদিন  মেডিটেশন করার ফলে কনফিডেন্স লেভেল কে অনেক উঁচুতে নিয়ে যায়।

আমরা আমাদের এই ব্যস্ত জীবনে আমরা নিজেদের প্রতি যত্ন নিতে ভুলে যায়, এই কারণে আমাদের শরীরে বাসা বাঁধে বিভিন্ন ধরনের রোগ, প্রাচীন শাস্ত্রে উল্লেখ রয়েছে এগুলি নিরাময়ের জন্য ধ্যান বা মেডিটেশন কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যে ধর্মেরই মানুষ হই না কেন ধ্যান আমাদের অবশ্যই করা উচিত, শাস্ত্রে মেডিটেশনের কথা বারবারই উল্লেখ করা হয়েছে, ধ্যান থেকে আমরা বিভিন্ন ভাবে উপকৃত হতে পারি।  এমনকি বিজ্ঞান ও এটাকে  প্রমাণ করেছে যে ধ্যান আমাদের প্রত্যেকের জন্য কতটা জরুরি।

@newswap01

আমরা প্রত্যেকেই কোনো না কোনো কারণে মানসিক অবসাদে ভুগছি , এটা নিরাময়ের সবচেয়ে কার্যকর উপায় হল ধ্যান, কারণ ধ্যান করার সময় এক প্রকার  কর্টিসুর  ট্রেস হরমোন কমাতে সাহায্য করে।

মেডিটেশন শরীরের উপর কি প্রভাব ফেলে?

ধ্যান বা মেডিটেশন যেমন আমাদের মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে তেমনি আমাদের নিজেদেরকে চিনতে সাহায্য করে । ধ্যানের মাধ্যমে আমরা আমাদের আবেগকে চিনতে ও বুঝতে পারি,

Meditation Effect on our body

নিয়মিত  যারা ধ্যান করে তাদের স্মৃতিশক্তি অনেকটাই বেড়ে যায়। আমাদের রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণ করে। 

ঘুমের সমস্যা  ঠিক করতে পারে। নেশা গ্রস্থ মানুষদের নেশা ছাড়াতে ও অনেক উপকার করে।

মেডিটেশন আমাদের ত্বকের উপর কি প্রভাব ফেলে?

Meditation effect on our skin

আমাদের উজ্জ্বল ত্বক পেতে সাহায্য করে, মস্তিষ্ককেও সুষ্ঠু ও তার বিকাশ ঘটাতে খুবই প্রয়োজন। মেডিটেশন আমাদের স্কিনকে তর তাজা রাখতে সাহায্য করে। মানসিক চিন্তা ও অবরোধের কারণে আমাদের  ত্বক বা স্কিন এর ওপর প্রভাব ফেলে যার বিরুদ্ধে মেডিটেশন খুব ভালো হবে কাজ করে। যারা নিয়মিত মেডিটেশন করে তাদের  শরীরে খুব সহজে বয়সের ছাপ পরে না। নিরব থাকার সবচেয়ে কার্যকরী উপায় হল মেডিটেশন।

মেডিটেশন করার ফলে আমরা আমাদের মনকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি,আমরা রাগের কারণে অনেক ভুলভাল কাজ করে ফেলি কিন্তু মেডিটেশন নিয়মিত করার ফলে রাগ ও ইমোশনাল আমরা কন্ট্রোল করতে পারব।আমরা যদি না চাই তাহলে আমাদের মস্তিষ্কে কোন খারাপ চিন্তা ভাবনা আসতে পারবে না।

Related post: যৌবন ধরে রাখার সহজ উপায়

মেডিটেশন কিভাবে করব?

আগেকার দিনের ঋষি মুনি রা ধ্যান করার জন্য শান্ত বন-জঙ্গল কেই বেছে নিতেন,কিন্তু আজকের দিনে আমাদের বনে জঙ্গলে গিয়ে মেডিটেশন করা সম্ভব নয়,  তাই আপনি আপনার ঘর কেই বেছে নিতে পারেন, মেডিটেশন করার জন্য সবার আগে আমাদের পরিষ্কার জায়গা বেছে নেওয়া দরকার।

মিউটেশনের সময় আমাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হচ্ছে প্রকৃতির সঙ্গে সংযোগ বজায় রাখা, আমরা আমাদের বাড়ির বাগান বা গাছের নিচে ও মেডিটেশন করতে পারি। মিউটেশনের সবচেয়ে প্রয়োজনীয় বিষয় হল নীরবতা কিন্তু এখনকার দিনে নীরবতা  জায়গা পাওয়ার কোন উপায় নেই, তাই আপনি বাজার থেকে এয়ারপ্লাগ কিনে আনুন ।

মেডিটেশন অনেকভাবেই করা যায় এমনকি শুয়ে শুয়ে ও মেডিটেশন করা সম্ভব।

কিন্তু এখানে একটাই উপায় জানাবো যেটা আপনি খুব সহজেই করতে পারবেন । আপনাকে আসন কেটে বসতে হবে হয়ে বসতে হবে এবং মেরুদন্ড সোজা করে চোখ বন্ধ করে দুটি হাত একটি হাতের তালুর ওপর রেখে জোরে নিঃশ্বাস নিতে হবে কয়েক বার, রিলাক্স হয়ে শ্বাস নিতে হবে এবং ছাড়তে হবে।

এরপর আপনি  নরমালি শ্বাস নিতে থাকুন,  তারপর বন্ধ চোখে আপনি আপনার শ্বাস-প্রশ্বাস কে দেখুন সেটাকে অনুভব করার চেষ্টা করুন, অনুভব করুন আপনার শ্বাস কিভাবে আপনার ভেতরে প্রবেশ করছে, এবং কিভাবে বাইরে বের হয়ে যাচ্ছে।

Another articles: Yoga বা যোগব্যায়াম আমাদের শরীরে কত রকম ভাবে উপকার করতে পারে?

 প্রথম প্রথম  মেডিটেশন করার সময় আমাদের অনেকেরই প্রবলেমে পরতে হয় কারণ এই সময় আমাদের বিভিন্ন রকমের চিন্তা মাথায় আসতে থাকে,এই সময়ে আমরা সেই মুহূর্তে মেডিটেশন করা বন্ধ করে দেই কিন্তু আমাদের এটি করলে চলবেনা আমাদের একটা জিনিসের উপর ফোকাস করতে হবে, অন্যান্য ভাবনা চিন্তার মধ্যে প্রবেশ করলে হবে না। 

 এই ভাবনা চিন্তা আমরা নিজের থেকে আটকাতে গেলে চলবেনা কারণ আমরা যখন তাকে আটকাতে যাব তখন এই চিন্তা ভাবনা গুলো আমাদের মধ্যে আরো বেশি বেশি করে আসবে,তাই আমাদের চেষ্টা করতে হবে এই ভাবনা চিন্তায় না গিয়ে পরক্ষনেই আবার আমাদের আগের জায়গায় ফিরে আসতে হবে।এইভাবে টানা 21 দিন আমরা যদি মেডিটেশন করতে পারি আমরা নিজেরাই আমাদের মধ্যে চেঞ্জ টা দেখতে পাবো। তাই সুস্থ থাকতে অবশ্যই মেডিটেশন করুন এবং  ভাল থাকুন।

বং টেকনিকাল খেলাধুলা জ্ঞান মূলক তথ্য জানতে হলে আমাদের নোটিফিকেশন বেলটি Allow করতে ভুলবেন না এবং আমাদের সাথে জুড়ে থাকবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button