টেক

মেটাভার্স কি? এর সুবিধা এবং অসুবিধা গুলি কি কি?

 বর্তমান সময়ে যারা একটু মোবাইল কম্পিউটার এবং টেকনোলজি দিকে খোঁজ নেন বা ইন্টারেস্টেড আছেন তারা অবশ্যই মেটাভার্স এর নাম শুনেছেন।  কিছু সময় আগে ফেসবুক তার কোম্পানির নাম চেঞ্জ করে  নতুন নাম রাখেন “ Metaverse ” মেটাভার্স।

Metaverse

 এটি একটি অবাক করা ব্যাপার কারণ এত দিনের পুরনো কোম্পানি তার নাম চেঞ্জ করবে কোন বড় কারন থাকার কারণে। Meta শব্দটা একটি গ্রিক শব্দ,  এ শব্দটি শুনতে নতুন হলেও এ শব্দটি অনেকদিন আগেই একটি বইতে  দেখা গিয়েছে,  ওই বইতে বোঝনা ছিল যে বাইরের পৃথিবীর মানুষের বসবাসের জন্য অভিযুক্ত নয় সেই কারণে মানুষ এটির মাধ্যমে একটি নতুন ভার্চুয়াল দুনিয়ায় বসবাস করতে পারবে।

মেটাভার্স  সহজ বলে মনে হলেও এটি অতটা সহজ ব্যাপার নয় অন্তত ভারত বাংলাদেশের মতো জায়গাতে,  এর জন্য  অনেক সময়ের প্রয়োজন এবং অনেক দ্রুত ইন্টারনেট সিগন্যাল এর প্রয়োজন। 

মেটাভার্স  কিছু সুবিধার সাথে অনেক অসুবিধা রয়েছে যেগুলি আমার এয়ারটেল এর মাধ্যমে আপনারা বিস্তারিতভাবে জানতে পারবেন। 

@newswap01

আরও পরুনঃ ফ্লিপকার্ট পে-লেটার কিভাবে ব্যবহার করবেন?

মেটাভার্স কিভাবে কাজ করবে?

মেটাভার্স  হল সম্পূর্ণ একটি ভার্চুয়াল দুনিয়া,  এখানে মানুষ তাদের সময় কাটাতে পারবে কাজ করতে পারবে মানুষের সাথে গল্প করতে পারবে সামনাসামনি দেখা করে কথা বলতে পারবে মিটিং এটেন্ড করতে পারবে পড়াশোনার ক্ষেত্রে স্কুলের  উপস্থিত থাকতে পারবে আরো অনেক কিছু। মেটাভার্স  এর মধ্যে  এমন একটি দুনিয়া বর্তমান যেখানে পৃথিবীর  অফলাইন দুনিয়ার সাথে কোন সম্পর্ক নেই।

এখানে আপনি আপনার ভার্চুয়াল দুনিয়ার জন্য অনেক কিছু কিনতে পারবেন যার জন্য কোন দেশের কোন কারেন্সি অর্থাৎ টাকা পয়সা এখানে কোন মূল্য রাখবে না,  ডিজিটাল কারেন্সি হবে এর মধ্যে ব্যবহৃত সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস যেমন বিটকয়েন, ইথেরিয়াম ইত্যাদি। ভবিষ্যৎ দুনিয়ার যেদিকে যেতে চলেছে সেই সময় মেটাভার্স  খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে কারণ এটি মানুষের অনেক ক্ষেত্রে সুবিধা করে দেবে।  বর্তমান সময়ে অনলাইনে পড়াশোনা হচ্ছে, এর আগে কখনো কিন্তু এটি  কেউ ভাবতে পারেননি। ঠিক সেরকমই মেটাভার্স  মানুষের কাছে সাধারন একটি বস্তু হয়ে দাঁড়াবে। 

Crpyto

ফেসবুক অর্থাৎ মেটা  এমনভাবে এটিকে  মানুষের সামনে আনার চেষ্টা করছে যে মানুষ এটিতে বারবার আসে এবং তাদের সময়  দেয়।  তার জন্য ফেসবুক অনেক ধরনের গেম,  ভিডিও বিভিন্ন জায়গায়  ভ্রমণ করা বিভিন্ন মানুষদের সাথে পরিচয় করা আরো অনেক কিছুর সুবিধা দিচ্ছে কিন্তু মানুষ ধীরে ধীরে  বিরক্ত হতে শুরু করবে,  তার জন্য ফেসবুক চাইছে অন্যান্য কোম্পানি যারা অফলাইন ও অনলাইনে ব্যবসা বাণিজ্য করছে তাদেরকে এই মেটাভার্স  এর মধ্যে আনা।  বিভিন্ন কোম্পানির ব্যবসা বাণিজ্য মেটাভার্স  এর মাধ্যমে হলে অনেক ডিজিটাল ভাবে কর্মচারী প্রয়োজন হবে যেখানে সাধারন মানুষেরা কাজ করতে পারবে  এবং কাজের  নতুন কিছু খোঁজ পাওয়া যাবে। 

আরও পরুনঃ কিভাবে আপনার PC তে Internet Speed Meter অন করবেন?

অনেকের মনে আপনি হয়তো ভাবতে পারেন যে  আমরা নিজের জীবনে অর্থাৎ বাস্তব জীবনে কাজ করতে পারি ঘুরতে যেতে পারি কারো সাথে কথা বলতে পারি কিন্তু মেটাভার্স  এর মাধ্যমে আপনি আপনার চিন্তা ভাবনার থেকেও বাইরে বেরিয়ে কিছু কাজ করতে পারবেন যার অনেক কিছু সুবিধাও রয়েছে। যদি আপনার কোন আত্মীয় বা কোন বন্ধু আপনার থেকে অনেক দূরে রয়েছে কিন্তু আপনি তার সাথে দেখা করতে চান বা কোন জায়গায় ঘুরতে যেতে চান তাহলে তার জন্য আপনাকে অনেকটা সময় নষ্ট করতে হবে এবং কোন যানবাহনের মাধ্যমে আপনাকে তার কাছে যেতে হবে।

মেটাভার্স  এর  জন্য বর্তমান সময় 3D  চশমা পড়ে যেকোন জায়গায় যেতে পারবেন,  কিন্তু ধীরে ধীরে এটা আরো উন্নত হয়ে নতুন একটা  পোশাকের  আবিষ্কার করা হয়েছে যার মাধ্যমে আপনাকে মেটাভার্স এর  মধ্যে কেউ স্পর্শ করলে আপনি সেই পোশাকের সেন্সরের মাধ্যমে বুঝতে পারবেন আপনাকে ছোঁয়া হয়েছে বা স্পর্শ করা হয়েছে।  তার ফলে কেউই চাইবেনা হাজার কিলোমিটার দূরে গিয়ে নিজের সময় নষ্ট করতে। 

মেটাভার্স এর কিছু সুবিধাঃ

 আমাদের জীবনে মেটাভার্স  এর কিছু সুবিধা গুলি হলঃ

মেটাভার্স  এর মাধ্যমে আপনি আপনার অনেক সময় বাঁচাতে পারবেন। 

পড়াশোনার ক্ষেত্রে এটি একটি বিরাট ভূমিকা পালন করবে ভবিষ্যৎ সময়। 

চিকিৎসা বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে আরো অত্যাধুনিক হতে সাহায্য করবে। 

আপনি যখন বাইরে কোন বন্ধু বান্ধবীর সাথে দেখা করতে যাবেন বা নতুন কোন মানুষের সাথে পরিচয় করতে যাবেন তখন মেটাভার্স  এর হলে আপনি বাড়ি থেকেই সম্পূর্ণ কাজটি করতে পারবেন  এর ফলে অনেক ক্রাইম রেট কমে যাবে কারণ ফিজিক্যালি আপনাকে কেউ কোনো রকম ক্ষতি করতে পারবে না বা আপনার থেকে কোনো রকম কোনো টাকা-পয়সা চুরি হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না। 

আপনার পছন্দের কোন সেলিব্রেটির প্রোগ্রাম আপনি বাড়িতে বসেই মেটাভার্স  এর মাধ্যমে উপভোগ করতে পারবেন।

  যেকোনো জায়গায় আপনার মন চাইলে আপনি  ঘুরতে যেতে পারবেন।

আপনি অনেক ইনসিকিউরিটি মধ্যে যদি থেকে থাকেন হয়তোবা আপনার ফিজিক্যালি কোন সমস্যা রয়েছে যেটি আপনি বাইরের দুনিয়ার কাছে দেখাতে  চাইবেন না,  তবে আপনাদের কাছে এটি খুবই একটা ভালো ভূমিকা পালন করবে কারণ আপনি মেটাভার্স  এরমধ্যে আপনার নিজস্ব অভাতার বানাতে পারবেন,  যেদিকে আপনি  আপনার মত দেখতে বানাতে পারেন হয়তো বা অন্যরকম বানাতে পারবেন আপনি যেরকম চাইবেন। 

আরও পরুনঃ Windows 11 থেকে Windows 10 এ কিভাবে ফিরে যাবেন? (১০ দিন পরে) 

মেটাভার্স এর কিছু অসুবিধাঃ

মেটাভার্স এর কিছু সুবিধা থাকলেও অনেক অসুবিধা রয়েছে যেগুলো ভবিষ্যৎ সময় মানুষের বড় পরিমাণ ক্ষতি করতে চলেছে সেগুলোর কিছু উদাহরণ নিচে দেওয়া হলঃ

মেটাভার্স  আমাদের জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে যাবে ফলে আমরা টেকনোলজি অর্থাৎ ফোন, ইন্টারনেট, মেটাভার্স এর থেকে কখনোই বেরোতে পারবোনা। 

আমরা আমাদের বাস্তব অফলাইন জীবনকে  বাঁচতে পারব না।

আমরা আমাদের বেশিরভাগ সময় ডিজিটাল ভাবে থাকার কারণে আমাদের মস্তিষ্ক বেশি খিটখিটে হতে থাকবে সাধারন কোন মানুষের সাথে আমরা খারাপ ব্যবহার করব যেটি কখনই ভাল দিক নয়।

 মানুষকে আমরা সম্মান কম করব আরো অনেক রকম পরিবর্তন আমাদের মধ্যে দেখা যাবে।

 ভবিষ্যতে আমরা অনেক বেশি একাকীত্ব অনুভব করব যতটা না এখন সম্ভব,  ভবিষ্যৎ সময়ে এটি একটি গুরুতর রোগ এ পরিণত হবে। 

 দিনের পর দিন আমরা আমাদের স্বাস্থ্যের খেয়াল কম রাখতে শুরু করব,  বাড়িতে আমাদের ইমিউনিটি পাওয়ার কমতে শুরু করবে।  আমরা দিন দিন স্থল কার হতে থাকবে। 

যারা পড়াশোনা জানে এবং টেকনিকাল ব্যাপারে যথেষ্ট অভিজ্ঞতা রয়েছে তাছাড়া বাকি মানুষ  গুলি ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে এমন কিছু জানে না ফলে  ডিজিটাল ভাবে অনেক ধরনের স্ক্যাম হতে পারে।

আমরা যতই ক্রিপ্টোকারেন্সি কে ডিজিটাল কারেন্সি বলি কিন্তু,  পৃথিবীতে হ্যাকার অনেক রয়েছে যাদের কাছে এগুলি ভাঙ্গা কোন ব্যাপার নয়।  যে জিনিস বানানো যায় সে জিনিসকে নষ্ট করা হয়ে যায়। 

মেটাভার্স ব্যবহার করার  বর্তমান সময় ভারী রকমের একটি চশমা পরতে হয় যার ফলে আমাদের শারীরিক ক্ষতি দেখা যাবে। 

হয়তো আমার একটি আর্টিকেল এর মাধ্যমে  এই বিষয়ে সমস্ত তথ্য নাও বিশ্লেষিত হতে পারে তার জন্য ক্ষমা করবেন ভবিষ্যতে আরো চেষ্টা করব আপনাদের কাছে আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য নিয়ে আসার। 

নতুন খবর এবং টেকনিকাল খেলাধুলা জ্ঞান মূলক তথ্য জানতে হলে আমাদের নোটিফিকেশন বেলটি Allow করতে ভুলবেন না এবং আমাদের সাথে জুড়ে থাকবেন।

Related Articles

Back to top button