Uncategorized

What is Virtual Ram? (ভার্চুয়াল RAM কি) সত্যিই কি Virtual Ram মাধ্যমে ফোন ফাস্ট হয়?

বর্তমান মার্কেটে Virtual RAM প্রতিটি ফোনের মধ্যেই দেখা যাচ্ছে। এই Virtual RAM আদেও ফোন ফাস্ট করতে কাজে লাগে? নাকি মানুষকে ফোনের মার্কেটিং বাড়ানোর জন্য বোকা বানানো হচ্ছে এটির মাধ্যমে, আজ এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনারা সমস্ত ব্যাপারটা জানতে পারবেন। 

What is Virtual RAM?

Virtual RAM এর ব্যাপারে জানতে গেলে আগে আপনাকে জানতে হবে RAM কি জিনিস, RAM হলো Random Access Memory, সহজ বাংলায় বলা যায় আপনার ফোন বা কম্পিউটার এ এবং অন্যান্য ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস গুলিতে যেই অ্যাপ্লিকেশন বা সফটওয়্যার গুলি চলমান রাখার জন্য যে জিনিসটার প্রয়োজন সেটি হলো RAM. এই VIRTUAL RAM ব্যবহার হতো কম্পিউটারের মধ্যে কিন্তু দিনের পর দিন টেকনোলজি বাড়তে থাকায় সেটি চলে এসেছে আমাদের ফোনে। 

Virtual RAM হলো আমাদের ফোনে সফটওয়্যার এর মাধ্যমে ROM থেকে কিছু পরিমাণ স্টোরেজ কিছু সময়ের জন্য RAM এ convert করে, কিন্তু সেটি শুধুমাত্র সফটওয়্যার এর মাধ্যমে আলাদা কোনো RAM এর হার্ডওয়ার ফোনে উপস্থিত থাকে না। এর ফলে কিছু কিছু অ্যাপ্লিকেশন এর জন্য ফোন তার হিসাব অনুযায়ী এক্সট্রা RAM ব্যবহার করতে পারে।

সবার প্রথমে এই Virtual RAM নিয়ে এসেছিল VIVO কোম্পানির ফোন, পরে আসতে আসতে অনেক যেমন realme, Samsung etc. কম্পানি এই পদ্ধতির মাধ্যমে মার্কেটিং করা শুরু করলো। 

@newswap01
What is Virtual RAM?

Virtual RAM really grows our phone performance?

Virtual RAM
RAM+ Virtual EAM

সত্যি বলতে না, কারণ এটি পুরোপুরি সফটওয়্যার এর মাধ্যমে করা হয় কোন ফোনে হার্ডওয়ার সেই ক্ষমতা সম্পন্ন নাহলে কখনোই সেটি বাড়ানো সম্ভব না। 

আসলে এটি বিভিন্ন স্মার্টফোন কোম্পানি বিক্রি করার একটি পদ্ধতি, কারণ সাধারন মানুষরা এই ব্যাপারে খুব একটা বেশি পরিমাণে না জানার কারণে অনেকেই এই ব্যাপারটা নিয়ে show-off  করে কারণ তাদের ফোনে RAM অটোমেটিক্যালি বাড়ানো যায়। 

টেকনিক্যাল ভাবে দেখতে গেলে ফোন এবং বিভিন্ন ইলেকট্রনিক গ্যাজেট এর RAM এর read and write speed ROM এর স্পিড এর থেকে অনেক কম হয় একটি উদাহরণ দিয়ে বলা যায় যদি ফোনের ROM UFS 3.1 হয় তবে সাধারন LPDDR4 এর read & write speed এর থেকে হাফ হয়, সেই কারণে কখনোই একটি ফোনের RAM এবং ROM একসঙ্গে কাজ করতে পারে না। 

Read More: What is Pegasus Spyware?

দ্বিতীয় কথা হল, যেসব অ্যাপ্লিকেশনগুলি ফোনের ইন্টারনেট কানেকশন এর সাথে বারবার রিফ্রেশ হয় যেমন Facebook, YouTube এবং আরো অন্যান্য সেই সমস্ত অ্যাপ্লিকেশনগুলি এই Virtual RAM এর মধ্যে অ্যাড হবে না যার ফলে বেশি ব্যবহৃত অ্যাপ এর ক্ষেত্রে এগুলো বেশি প্রয়োজন হয় না। 

বর্তমান দিনের মোবাইল ফোন গুলি অনেক বেশি পরিমাণে RAM থাকে তারপরেও সেখানে Virtual RAM এর মত সুবিধা দেওয়া হয় কিন্তু এটার সবথেকে বেশি পরিমাণ প্রয়োজন কম বাজেট ফোন গুলিতে, কারণ কিছু অ্যাপ্লিকেশন এর জন্য পুরো RAM storage ভর্তি হয়ে যায়। 

শেষ কথায় বলতে গেলে Virtual RAM এর মাধ্যমে ফোনের পারফরম্যান্স কখনোই বৃদ্ধি পায় না ওটা শুধুমাত্র মার্কেটিং করার একটি পদ্ধতি।

বিভিন্ন ধরনের নতুন খবর এবং টেকনিকাল খেলাধুলা জ্ঞান মূলক তথ্য জানতে হলে আমাদের নোটিফিকেশন বেলটি Allow করতে ভুলবেন না এবং আমাদের সাথে জুড়ে থাকবেন।

Related Articles

Back to top button