Uncategorized

Windows 11 এর কিছু বিশেষ সুবিধা ও অসুবিধা | Windows 11 Pros and Cons 

Windows 11 এ যারা তাদের PC, Laptops  আপডেট করেছে তাদের মধ্যে অনেকেই Google এবং Youtube এ তাদের নতুন ফিচারস এবং গোপন তথ্য জানার ব্যাপারে সার্চ করেছে। 

যারা অনেকদিন ধরে Windows 10 ব্যবহার করে যাচ্ছে তারা তাদের PC ও Laptop, Windows 11 আপডেট করতে একটু ভয় পেয়েছে কারণ এটি একটি নতুন ভার্সন অফ উইন্ডোজ এতে তাদের পিসি বা ল্যাপটপ এর ওপর কতটা প্রেসার পড়বে এবং ঠিকভাবে কাজ করবে কিনা এই নিয়ে সংশয় ছিল। 

Windows 11 কোন কম্পিউটার ও ল্যাপটপ এ সাপোর্ট করবে কিনা তার জন্য একটি সফটওয়্যার লঞ্চ করেছে যার নাম PC Health Check সেটির মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন যে উইন্ডোজ ইলেভেন আপনার ডিভাইসে চলতে পারবে কিনা কিন্তু তা ছাড়াও অনেকের অনেক প্রবলেম দেখা দিয়েছে আপডেট করতে। 

অনেকে ভাবছে এর জন্য আলাদা করে টাকা দিতে হবে বা আলাদা লাইসেন্স কিনতে হবে কিন্তু Windows 11 পুরোটাই ফ্রী, যাদের পিসিতে একবার লাইসেন্স কি এক্টিভেট থাকবে তাকে আর কোন টাকা দিতে হবে না। 

@newswap01

Windows 11 আপনার ডিভাইসে ভালো ভাবে চালাতে গেলে কি কি জিনিষ এর প্রয়োজন রয়েছে নিচে লিস্ট করে দেওয়া রয়েছে ????

Processor:  

1 gigahertz (GHz) or faster with 2 or more cores

RAM: 

4 gigabyte

Storage:

64 GB or larger storage device

System firmware:

UEFI, Secure Boot capable

TPM:

Trusted Platform Module (TPM) version 2.0

Graphics card:

Compatible with DirectX 12 or later with WDDM 2.0 driver

Display:

High definition (720p) display that is greater than 9” diagonally, 8 bits per color channel

Read More: কিভাবে ফোন স্মার্ট টিভির সাথে বিনা ওয়াই ফাই তে ফোন কানেক্ট করবেন?


আসুন এবার জেনে নিন Windows 11  ব্যবহার করে আপনি কি কি সুবিধা পেতে পারেন এবং তার সাথে সাথে কি কি অসুবিধা রয়েছে।

Windows 11 Pros:

Windows 11 এ অনেক কিছু ভালো জিনিস এড করা হয়েছে আগের থেকে অনেক অপটিমাইজ করা হয়েছে, 

New UI:

Windows 11 আপডেটের পর অনেকটা ফোনের মত তৈরী করার চেষ্টা করেছে Microsoft , উইন্ডোজ ইলেভেন এ প্রত্যেকটা অ্যাপস সফটওয়্যার এর আইকন গুলো নতুন করে মডিফাই করা হয়েছে এবং প্রত্যেকটা সফটওয়ারের যে কর্নার গুলো সেগুলো রেক্টাঙ্গুলার থেকে রাউন্ড কর্নার করা হয়েছে। 

Windows 11
Windows 11 New UI

নতুন স্টার্ট বাটন এর আইকন চেঞ্জ হয়েছে ওপেন হওয়ার অ্যানিমেশন প্রায় সব চেঞ্জ করা হয়েছে। 

Windows 11 এ থিমের অপশন অনেক বেশি উন্নত করা হয়েছে কারণ এখন ফোনের মত ডাক্টিং এবং লাইভ থিম এর ব্যবহার করা যাবে, এর ফলে আপনারা যে কোন ডেস্কটপ ওয়ালপেপার ব্যবহার করলেও ডাইরেক্ট ডার্ক মোড করতে পারবেন ফলে টোটাল সিস্টেমের অ্যাপস ডার্ক মোড এ রূপান্তরিত হবে। 

Windows 11 এ সবকিছুর সাউন্ড কে চেঞ্জ করা হয়েছে ওপেন হওয়ার সাউন্ড এরর হওয়ার সাউন্ড বাড়ানো কমানোর সাউন্ড। 

Microsoft store: 

মাইক্রোসফ্ট স্টরে নতুন করে মডিফাই করা হয়েছে তার ফলে আইকন চেঞ্জ হয়েছে এবং অনেকটা ফোনের মত দেখতে লাগছে, 

Windows 11
Windows 11 Microsoft Store

মাইক্রোসফট স্টোর এর মধ্যে ইউনিভার্সাল অ্যাপ এর সুবিধা রয়েছে যার ফলে আপনারা গ্লোবাল এবং আরো অনেক ধরনের অ্যাপ্লিকেশন ইউজ করতে পারবেন, মাইক্রোসফট স্টোরে আপনারা নিজেদের বানানো অ্যাপ কে আপলোড করতে পারবেন। 

Android apps in Windows 11: 

Windows 11 তার মাইক্রোসফট স্টোর এর মধ্যে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস এর জায়গা করে দিয়েছে ফলে আপনারা একদিকে উইন্ডোজ এর এপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারবেন অন্যদিকে এন্ড্রয়েডের অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু এটি বর্তমানে সব কম্পিউটার ও ল্যাপটপ অ্যাভেলেবল হয়নি তার জন্য আপনাদের বিটা ভার্সন একটিভ করতে হবে এবং স্পেশালি ভারতীয় অনেক ল্যাপটপ কম্পিউটারে এখনো পর্যন্ত এটি দেখা যায়নি। 

হয়তো কোনো ভবিষ্যত আপডেটের মাধ্যমে এটির অ্যাক্সেস সমস্ত ল্যাপটপ এবং কম্পিউটারে দিয়ে দেওয়া হবে।

New Desktop mode in Windows 11:

Windows 11
Windows 11 New Desktop Mood

New desktop mode এর মাধ্যমে আপনারা একটি অন্য মনিটরে খুব সহজেই অন্যান্য কাজ করতে পারবেন কারণ স্টার্ট বাটন এর পাশেই নিউ ডেক্সটপ মোড এর অপশন দেওয়া হয়েছে যার ফলে আপনি যে ডেক্সটপে কাজ করছেন তৎক্ষণাৎ আপনি একটি নতুন দেক্সটপ ওপেন করতে পারবেন এটি পুরোপুরি ফ্রেশ অবস্থায় থাকবে। 

New snipping tool in Windows 11:

Windows 11
Windows 11 New Sniping Tool

Windows 11 এ নতুন করে স্নিপিং টুল কে মডিফাই করা হয়েছে উইন্ডোজ টেনে যেমন ছিল তার থেকে একটি অপশন কে বাড়ানো হয়েছে, এখন আপনি এই স্নিপিং টুল এর মাধ্যমে পেন্সিলের মত ফ্রী ফ্রম মোড ইউজ করে আপনার ইচ্ছামত এরিয়াতে স্ক্রিনশট নিতে পারবেন। 

Teams in Windows 11:

Windows 11
Windows 11 Teams

Windows 11 এ টাস্কবারে আলাদা করে একটি চ্যাট সেকশন বানিয়ে রেখেছে যার ভিতরে রয়েছে Teams বর্তমান সময়ে ভার্চুয়াল মিটিং এবং ক্লাস হওয়ার জন্য উইন্ডোজ ইলেভেন এটির একটি সুব্যবস্থা করেছেন।

Gaming features and display:

Windows 11
Windows 11 HDR Display Mood

Windows 11 সবথেকে বেশি অপটিমাইজ করেছে গেমিং ফিচারস কারণ বর্তমান যুগে গেমিং এর মার্কেট খুবই বাড়তে থাকছে, Windows 10 এ আগে কোন গেম লঞ্চ হতে যতটা না বেশি সময় লাগতো তার থেকে অনেক কম সময় লাগছে Windows 11 এ, 

গেমিং ফিচারস এর কথা মাথায় রেখে ডিসপ্লে এর HDR mood অন করেছে, যে সমস্ত ডিভাইস এবং যে সমস্ত মনিটরে HDR সাপোর্ট করবে, সেই সব ডিভাইসে বেশি ভাইব্রেন্ট এবং একুরেট কালার দেখতে পারবেন। 

Voice Typing:

Windows 11
Windows 11 Voice Typing Mood

Windows 11 এ বর্তমানে. Voice typing ( Ctrl + H ) নামক ফিচার এড হয়েছে যার ফলে আপনি যে কোন কিছুতে ভয়েসের মাধ্যমে টাইপ করতে পারবেন, কিন্তু এর একটি খামতি রয়েছে, এটি ইংলিশ ছাড়া অন্য কোন ভাষাতে বর্তমানে কাজ করেনা আশা করা যায় ভবিষ্যতে আপডেটের মাধ্যমে আরও বেশি ল্যাঙ্গুয়েজ এর এড্রেস পাওয়া যাবে।

New Desktop split screen:

Windows 11
Windows 11 New Desktop Split Screen

এই মোড এর মাধ্যমে কোন উইন্ডো ওপেন করলে তার ম্যাক্সিমাস বাটন এর উপরে মাউসের কার্সর নিয়ে গেলে নতুন split-screen এর অপশন দিয়ে দেয় যেটি খুবই সুবিধাজনক। 

Read More

ফোন দ্রুত চার্জ করবেন কিভাবে? আসুন জেনেনি | How to charge mobile fast?

Windows 11 cons:

Windows 11 এ অনেক কিছু ফিচার অ্যাড করেছে যেটি খুবই ভালো, কিন্তু ভালো করতে গিয়ে তার পেছনে কিছু খামতি রেখে দিয়েছে যেগুলি অনেক মানুষের সমস্যা হতে পারে। 

Ram management: 

Windows 11 এ নতুন split-screen এর ফলে ডানদিক বাঁদিক এবং একসাথে তিনটে উইন্ডো ওপেন করা সম্ভব, কিন্তু একটু কম স্পিসিফিকেশন কম্পিউটারে দেখা গেছে তিনটে এর উইন্ডোকে একসাথে হ্যান্ডেল করতে পারছে না অনেক সময় ওই তিনটে উইন্ডোর মধ্যে একটি উইন্ডো কে ম্যাক্সিমাইজ করলে সময় বেশিক্ষণ লাগছে এবং কিছুটা আটকে যাচ্ছে। 

New right click menu: 

Windows 11
Windows 11 New Right Click Menu

বর্তমানে যারা টেকনিক্যাল জিনিস থেকে একটু দূরে থাকে কিন্তু তা সত্ত্বেও যারা কম্পিউটারকে ব্যবহার করে তাদের মধ্যে অনেকেই এই ব্যাপারটা নিয়ে বুঝতে অসুবিধা হতে পারে।

Windows 11 অনেকে জিনিসের ওপর মডিফাই করেছে এবং অনেক বেশি মেনু অপশন আনার চেষ্টা করেছে কিন্তু পুরনো দিন থেকে যারা উইন্ডোজ ব্যবহার করে আসছে তারা কোন উইন্ডোজ এর উপর রাইট ক্লিক করলে রিফ্রেশ বাটন আসত কিন্তু এখন show more options-এ ক্লিক করা না হলে সেই অপশনগুলি আসবেনা। 

বর্তমানে কোন কিছু কপি করলে তার পেস্ট বাটান রাইট ক্লিক করলে দেখা যাচ্ছে না তার বদলে শর্টকাট করে কিছু আইকন এর ব্যবহার করা হয়েছে,  যেটি কিছু মানুষদের ক্ষেত্রে নতুন মনে হতে পারে। 

এই ছিল আমার নিজের অভিজ্ঞতা, আরো কিছুটা সময় Windows 11 এর সাথে পার করার পরে হয়তো আপনাদের সাথে আরো বেশি কিছু শেয়ার করতে পারব। 

ধরনের নতুন খবর এবং টেকনিকাল খেলাধুলা জ্ঞান মূলক তথ্য জানতে হলে আমাদের নোটিফিকেশন বেলটি Allow করতে ভুলবেন না এবং আমাদের সাথে জুড়ে থাকবেন।

Related Articles

Back to top button